শুক্রবার, ২৫ জুন ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

শনিবার, ২৯ মে, ২০২১, ১২:১৫:১৮

তুরস্কের ঐতিহাসিক ঘটনা : ইস্তাম্বুলের তাকসিম মসজিদের উদ্বোধন

তুরস্কের ঐতিহাসিক ঘটনা : ইস্তাম্বুলের তাকসিম মসজিদের উদ্বোধন

অনলাইন ডেস্ক: তুরস্কে আজ এক ঐতিহাসিক ঘটনা ঘটল।  ইস্তাম্বুল শহরের তাকসিম মসজিদ উদ্বোধন হয়েছে। উদ্বোধন করেছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান। শুক্রবার তাকসিম স্কয়ারে এ মসজিদটি উদ্বোধন করা হয়। ধর্মনিরপেক্ষ অথচ মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ তুরস্কে অনেক প্রচেষ্টার পর ও বহু আইনি লড়াই শেষে এ মসজিদটি নির্মাণ করা হয়।

এ মসজিদটির নির্মাণকাজ শুরু হয় ২০১৭ সালে। তাকসিম স্কয়ারে এ ধরনের মসজিদ এ প্রথম নির্মিত হয়েছে। এটা এমন এক স্থানে অবস্থিত যার আশপাশে বহু খ্রিষ্টান গির্জা আছে। এটা একটি ছোট মসজিদ। ওসমানিয়া আমলের ছোট মসজিদের মতো আকারের এ মসজিদটিতে প্রতি ওয়াক্তে চার হাজার মানুষ একসাথে নামাজ পড়তে পারবেন।
 
তাকসিম মসজিদটি এমন এক স্থানে অবস্থিত যেখানে প্রতিদিন হাজারো মানুষ ভ্রমণ করতে আসেন। এ মসজিদটি ইসতিকলাল অ্যাভিনিউতে আতাতুর্ক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সামনে অবস্থিত। এ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটিকে এখানে নতুন করে নির্মাণ করা হবে এখানে একটি অপেরা হাউজ ও অন্যান্য সাংস্কৃতিক বিষয়ের কেন্দ্র স্থাপিত হবে। এটার পশ্চিম পাশে আছে গাজি পার্ক।

এ মসজিদটির উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান এ মসজিদটির প্রতিষ্ঠার সময়ের বিভিন্ন সংগ্রামের কথা সংক্ষেপে বর্ণনা করেন। অবশেষে তিনি দুঃখের সাথে বলেন, এ মসজিদ স্থাপনে অনেক কষ্ট করতে হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমি ইস্তাম্বুলের কাসিমপাশা জেলায় বড় হয়েছি। আমার মনে আছে মুসলমানদের একটি ছোট স্থানে খবরের কাগজের ওপর নামাজ পড়তে বাধ্য করা হতো। আমরা এখন আশা করতে পারি যে এ মসজিদটি বিশ্বাসী মুসলিমদের দ্বারা কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে উঠবে। আমরা আরো আশা করি এ মসজিদটি থেকে সব সময় আজানের ধ্বনি শোনা যাবে।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, ডিজিটাল লাইব্রেরি, পড়ার স্থান, এক্সিবিশন হল নিয়ে এ মসজিদটি ইস্তাম্বুলের একটি গুরুত্বপূর্ণ সাংস্কৃতিক ও শিল্প কেন্দ্রে পরিণত হবে।

১৯৫২ সালে প্রথম এ মসজিদটি নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হলে তৎকালীন ব্যবসায়ীদের একটি গ্রুপের বিরোধিতার কারণে সে উদ্যোগ ভণ্ডুল হয়ে যায়। এরপর বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন আইনি বিরোধের শেষ প্রান্তে বর্তমান প্রেসিডেন্ট এরদোগানের বিশেষ উদ্যোগে মসজিদটি বাস্তবতা পায়।

আজকের প্রশ্ন

পুরো ঢাকায় ‘অঘোষিত কারফিউ’ চলছে। সরকার জনগণকে জিম্মি করে জনগণকে বাদ দিয়ে বিদেশি অতিথিদের নিয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে ব্যস্ত। ফখরুলের এক মন্তব্যের সঙ্গে আপনি কি একমত?