মঙ্গলবার, ২২ জুন ,২০২১

Bangla Version
  
SHARE

বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১, ০৬:৩০:৫৪

সম্পর্ক সুন্দর রাখার ৪ শর্ত

সম্পর্ক সুন্দর রাখার ৪ শর্ত

লাইফস্টাইল ডেস্ক : সম্পর্ক সুন্দর রাখার জন্য দু’জন মানুষের প্রচেষ্টা থাকতে হবে। সম্পর্ক নিজে থেকে ভালো কিংবা খারাপ হবে না। সম্পর্ক ঠিক তেমনই হবে, যেমনটা আপনারা চাইবেন। সম্পর্ক সুন্দর রাখার আছে কিছু শর্ত।

সেগুলো পূরণ করে চলতে পারলেই জীবন হয়ে উঠবে আরও বেশি সুন্দর। শুরুটা সুন্দর বলে পুরোটা পথ আপনাআপনিই সুন্দর চলবে, এমনটা ভেবে নেবেন না। সম্পর্কে অভিমান, অভিযোগ, ভুল বোঝাবুঝি থাকবেই। সেসব সামলে চলতে পারলেই একসঙ্গে থাকা সম্ভব। জেনে নিন সম্পর্ক সুন্দর রাখার সহজ ৪ শর্ত-

যোগাযোগ রাখুন

সম্পর্কের গুরুত্বপূর্ণ দিক হলো যোগাযোগ। এই যোগাযোগ মানে কিন্তু দূরে থেকে ফোন করা বা ভিডিও কলে কথা বলা নয়; এই যোগাযোগ মানে হলো একে অপরকে বুঝতে পারা। বেশিরভাগ সম্পর্কেই ভুল বোঝাবুঝি হয় যোগাযোগ ভালো না থাকার কারণে। সেখান থেকে বাড়তে থাকে দূরত্ব। তাই একে অপরকে বুঝতে পারার অন্যতম উপায় হলো মন খুলে কথা বলা। আপনার সঙ্গীর সঙ্গে মনের জমানো সব কথা বলুন। কোনো বিষয় ভালো না লাগলে সেটিও বলুন। একইভাবে জানান ভালোলাগার বিষয়গুলোও। আনন্দের মুহূর্তগুলো ভাগ করে নিন। সম্পর্ক সুন্দর থাকবে।

সম্মান করুন

সম্পর্কের অন্যতম ভিত হলো সম্মান। যে সম্পর্কে সম্মান নেই, তা টিকিয়ে রাখা মুশকিল। তাই সম্পর্কে একে অন্যের প্রতি সম্মান থাকা জরুরি। সম্মান না থাকলে সম্পর্কে একের পর এক সমস্যা সৃষ্টি হতে থাকবে। পরস্পরের প্রতি আচরণ ও কথা বলার ধরনই বুঝিয়ে দেবে সম্পর্কে কতটা সম্মান রয়েছে। যদি সুন্দর ও দীর্ঘস্থায়ী সম্পর্ক চান তবে একে অন্যের প্রতি সম্মান ধরে রাখুন।

বিশ্বাস থাকা জরুরি

এটি সবারই জানা যে সম্পর্কে বিশ্বাস থাকা কতটা জরুরি। এক্ষেত্রে তার প্রতি আপনার যেমন বিশ্বাস থাকা চাই, তেমন আপনার প্রতিও তার বিশ্বাস থাকা চাই। একে অন্যকে বিশ্বাস করতে পারলে অনেক সমীকরণই সহজ হয়ে যাবে। আর যদি বিশ্বাস না থাকে তবে কেউ কারও কাছে নিরাপদ বোধ করতে পারবেন না। যেখান থেকে শুরু হতে পরে ভাঙন। ভাঙন ঠেকাতে চাইলে বিশ্বাস রাখতে হবে সঙ্গীর প্রতি। পাশাপাশি নিজেকেও বিশ্বস্ত করে গড়ে তুলতে হবে।

তাকে নিজের মতো করে থাকতে দিন

প্রত্যেক মানুষেরই নিজের একটি পৃথিবী থাকে। আপনি তার সঙ্গী বলেই যে তার পুরো পৃথিবীর দখলদারিত্ব নিয়ে নেবেন- এমনটা যেন না হয়। প্রত্যেকেই তার ব্যক্তিগত গণ্ডির ভেতরে বেশি স্বচ্ছন্দ। তাকে সেই সুযোগটা দিতে হবে। সব সময় তার সবকিছুতে খবরদারি করবেন না। তার ফোন, ডায়েরি, ওয়ালেট ইত্যাদি ঘাঁটাঘাঁটি বন্ধ করুন। যদি ব্যবহারের প্রয়োজন হয় তবে তার কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে নিন। পরস্পরের প্রতি এই বিশ্বাস, সম্মান ও ভালোবাসা ধরে রাখলে সম্পর্ক সুন্দর হতে বাধ্য।

আজকের প্রশ্ন

পুরো ঢাকায় ‘অঘোষিত কারফিউ’ চলছে। সরকার জনগণকে জিম্মি করে জনগণকে বাদ দিয়ে বিদেশি অতিথিদের নিয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে ব্যস্ত। ফখরুলের এক মন্তব্যের সঙ্গে আপনি কি একমত?